উপকূলে ক্ষতিগ্রস্থ ৭ উপজেলায় টেকসই বেড়িবাঁধের দাবীতে মানববন্ধন

পরিতোষ কুমার :

সাতক্ষীরা, খুলনা ও বাগেরহাট জেলা জলবায়ু অধিপরামর্শ ফোরাম, শ্যামনগর, আশাশুনি ও কয়রা উপজেলা জলবায়ু অধিপরার্শ ফোরাম এবং শ্যামনগর ও কালিগঞ্জ উপজেলা যুব ফোরামের আয়োজনে টেকসই বেড়িবাঁধ ও দক্ষিণ-পশ্চিম উপকূলীয় এলাকাকে দুর্যোগ ঝূঁকিপূর্ণ এলাকা ঘোষণা করার দাবীতে শ্যামনগর, আশাশুনি, কালিগঞ্জ, কয়রা, পাইকগাছা, বাগেরহাট সদর ও শরণখোলা উপজেলায় নাগরিক সমাজ মানববন্ধন করেছে। মানববন্ধনে সংহতি প্রকাশ করেছেন বেসরকারী উন্নয়ন সংস্থা লিডার্স, সুন্দরবন ও উপকূল সুরক্ষা আন্দোলন এবং উদয়ন বাংলাদেশ।
শ্যামনগর প্রেসক্লাবের সামনে, আশাশুনি উপজেলা পরিষদের সামনে, কালিগঞ্জ প্রেসক্লাবের সামনে, কয়রা উপজেলা পরিষদের সামনে, পাইকগাছা উপজেলা পরিষদের সামনে, বাগরেহাট প্রেসক্লাবের সামনে এবং শরণখোলা উপজেলা প্রেসক্লাবের সামনে একযোগে ৩০ মে সকাল ১১:০০ টায় এই মানববন্ধনের আয়োজন করা হয়। মানববন্ধনে উক্ত স্থানের নাগরিক সমাজের সকল পর্যায়ের মানুষ অংশগ্রহণ করেন।
মানববন্ধনে বক্তারা বলেন, “টেকসই বেড়িবাঁধ পুনঃনির্মান ও দক্ষিণ-পশ্চিম উপকূলীয় এলাকাকে দুর্যোগ ঝূঁকিপূর্ণ এলাকা ঘোষণা করতে হবে। সরকার সিডর, আইলা, রোয়ানু, মোরা, ফণী, বুলবুল ও আম্পান এর পর উপকূলীয় এলাকায় মেগা প্রকল্প বাস্তবায়ন করার কথা বললেও আজও তার বাস্তবায়ন হয়নি। শুধ দুর্যোগ এলেই মেগা প্রকল্প বাস্তবায়নের কথা বলা হয়। দুর্যোগ কেটে গেলে মেগা প্রকল্পের কোন খোঁজ থাকে না। সম্প্রতি সাইক্লোন ইয়াস এর প্রভাবে উপকূলীয় এলাকায় উচ্চ জোয়ারের কারনে সাতক্ষীরা জেলার শ্যামনগর, আশাশুনি ও কালিগঞ্জ উপজেলায়, খুলনা জেলার কয়রা ও পাইকগাছা উপজেলায় এবং বাগেরহাট জেলার মোড়লগঞ্জ, শরণখোলা ও মোংলা উপজেলায় বেড়িবাঁধ ভেঙে লোনা পানিতে মানুষের জীবন-জীবিকা, সম্পদ, খাদ্য, পানি, বাসস্থানসহ অন্যান্য সংকট সৃষ্টি করেছে। এই সংকট পুরণ হওয়ার নয়।” এজন্য অচিরেই টেকসই বেড়িবাঁধ নির্মানের দাবী জানান মানববন্ধনে বক্তারা।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *