কলারন গ্রামে বর্ষা ঋতুতে চরম দুর্ভোগ।

তারিকুল ইসলামঃ

পিরোজপুর জেলার ইন্দুরকানী উপজেলার বালিপাড়া ইউনিয়নের ৯ নং ওয়ার্ডের মূল সড়কটি জোমাদ্দারহাট থেকে সম্বুলা সংলগ্ন নতুন বাজার(তালুকদার হাট)হয়ে ইসমাইল হাওলাদারের বাড়ির ব্রিজের গোড়ায় শেষ হয়। জোমাদ্দারহাট থেকে সম্বুলা পর্যন্ত পীচ ঢালাই এবং তার পর ইসমাইল হাওলাদারের বাড়ির ব্রিজে হেরিং বন পাশ হয়। প্রথম অংশের কাজ সম্পন্ন হলে ২য় অংশ সম্বুলা থেকে ব্রিজ পর্যন্ত ২০১৫ সালে এটি অনুমোদিত হলেও ২০১৬ সালে মাটি খুড়তে দেখা যায় ও ৩.৫ কিলোমিটার রাস্তায় ADP অনুমোদিত রাস্তার পূর্ববর্তী ইটের রাস্তা খুড়ে ঢালাই এর জন্য ইট উঠিয়ে ফেলে এবং পরে তা নিয়ে যায় কাজের জন্য।ফলে রাস্তাটি মাটির রাস্তা হয়ে যায়।বৃষ্টির অযুহাতে কাজ বন্ধ হলে তারপরে আর কোনো কাজ হয়নি এখন পর্যন্ত,ফলে রাস্তাটি কাঁচাই রয়ে যায়।এখন (বৃষ্টির ঋতুতে) কলারন গ্রামের মানুষ চরম দুর্ভোগে পতিত হয় ,তাদের নতুন বাজার থেকে কিছু কিনতে হলে বেশি দামে কিনতে হয় অন্য বাজারের তুলনায়,এর কারণ সম্পর্কে দোকানিদের কাছে জানতে চাওয়া হলে তারা বলেন,আমাদের গাড়ী ভাড়া বেশী দিয়ে জিনিস পত্র আনতে হয়,অনেক সময় লেবারের মাধ্যমেও আনা হয় ,তাই দাম বেশি পরে। ইউপি সদস্য শাহাজান হাং এর সাথে কথা বললে তিনি বলেন, এ বিষয় আমি অনেকবার আবেদন করেছি কোন সাড়া পাওয়া যায় নাই এছাড়া আমার কাছে কোন তথ্য নেই ,তবে যা জানি এই রাস্তায় পুরাতন অনুমোদন নেই ,নতুন অনুমোদন না আসলে কোন কাজ শুরু করা যাচ্ছেনা।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *